কৈফিয়ৎ।

সাবেক মাননীয় প্রধান বিচারপতি ও প্রধান উপদেস্টা জনাব হাবিবুর রহমানের প্রবন্ধ –বাস্টার্ডাইজেসন অব ডেমোক্রেসী। সাবেক উপদেস্টা ও মন্ত্রীপরিষদ সচিব ডঃ আকবর আলী খানের প্রবন্ধ –শুয়োরের বাচ্চাদের অর্থনীতি। ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজের প্রবন্ধ- ত্রিশ লক্ষ শহীদের সংখ্যাতত্ত্ব – Debashish Roy Chowdhury, ‘Indians are Bastard Any way’, The Asia Times, 23 June, 2005.

মানবজমিন-ওরা বাস্টার্ড’-ওয়েছ খছরু, সিলেট থেকে | ২৩ মে ২০১৫, শনিবার | মতামত: ৫ টি ।- সিলেটে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে ক্ষোভ দেখালেন অর্থমন্ত্রীও। বললেন, ‘ওরা বাস্টার্ড। ওদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিয়েছি। কোনভাবেই ছাড় নয়।’………………….

মানুষকে “ছাগল” আখ্যায়িত করে প্রথম আলোয় সৈয়দ আবুল মকসুদের প্রবন্ধ লিখা, সাবেক সাংসদ গোলাম মাওলা রনি কর্তৃক তাঁর লিখায় “জারজ” শব্দ ইত্যাদি ব্যবহার করা হয়েছে।

কিছু লোকের ভয়ানক অপকর্মের উপর ক্ষোভ প্রকাশ করতে গিয়ে উপরোক্ত অত্যন্ত ভদ্রলোক বলে পরিচিত প্রথিতযশা ব্যক্তিগন সাধারনভাবে বিবেচিত slang language ব্যবহার করেছেন। সাবেক সাংসদ গোলাম মাওলা রনি, প্রখ্যাত সাহিত্যিক নিরোধ রায় চৌধুরীসহ বহু ভদ্রলোক শুয়োরের বাচ্চা, Bastard-জাতীয় শব্দগুলো তাদের লিখায় ব্যবহার করেছেন।

গালি বা slang language বহু প্রকারের হতে পারে। কিছু ইতর শ্রেনীর লোক অকারনে অপ্রয়োজনে এগুলো ব্যবহার করে। আর ভদ্রলোকেরা ব্যবহার করেন ভদ্রবেশী লোকদের চরম অনৈতিক কাজের প্রতিবাদস্বরূপ ক্ষোভ প্রকাশ করতে গিয়ে। ক্ষোভ প্রকাশ করতে গিয়ে সাবেক উপদেস্টা হোসেন জিল্লুর রহমান বলেছেন, “এখন ক্ষেপে যাওয়ার সময় হয়েছে”।

আমরা ভদ্রলোক কিনা তা প্রিয় পাঠক নির্ধারন করবেন(যদিও আমরা ভদ্রলোক)। কিন্তু আমরা এমন কিছু তথাকথিত ভদ্রলোকের বিষয়ে লিখব যারা simply শুয়োরের বাচ্চা, Bastard. প্রচন্ড ক্ষোভ ও দুঃখ থেকে আমাদের লিখায় এধরনের শব্দগুলো আসতে পারে। এজন্য প্রিয় পাঠকের নিকট আমরা দুঃখিত ও ক্ষমাপ্রার্থী।

Related posts