সৎ লোকের প্রকারভেদ।

আমরা ইতিপূর্বে অসৎ লোকের সংজ্ঞা বা প্রকারভেদ নিয়ে আলোচনা করেছি। এখন সৎ লোকের সংজ্ঞা বা প্রকারভেদ নিয়ে আলোচনা করব। সৎ লোক প্রধানতঃ চার প্রকারের।(আমাদের গবেষনামতে)।(১)প্রকৃত সৎ(২)সৎ কিন্তু vindictive (ক্ষমাহীন, ক্ষমাশূন্য, প্রতিহিংসাপরায়ন, সন্দেহপ্রবন) (৩)সুযোগের অভাবে সৎ (৪)সাহসের অভাবে সৎ।

(১)প্রকৃত সৎঃ-এঁরা যেকোন পরিবেশ পরিস্থিতিতেই সৎ। ব্যবসা-চাকুরী বা অন্য যেকোন ক্ষেত্রেই সৎ। সমাজে, রাষ্ট্রে এঁদের সংখ্যা খুবই নগন্য।ইঁনারা vindictive নহেন, broadminded.

(২)সৎ কিন্তু vindictive (ক্ষমাহীন, ক্ষমাশূন্য, প্রতিহিংসাপরায়ন, সন্দেহপ্রবন):-এরা কোন কোন ক্ষেত্রে অসৎ-দের চেয়েও খারাপ। এরা মনে করে তারা নিজেরাই সৎ বা ভাল, আর সবাই অসৎ বা খারাপ।

(৩)সুযোগের অভাবে সৎ (৪)সাহসের অভাবে সৎঃ-এই দু্ শ্রেনী নিজেদেরকে সৎ দাবী করলেও প্রকৃতপক্ষে এরা সৎ নহে। সমাজ বা রাষ্ট্রের এমন কিছু ক্ষেত্র আছে যেখানে অবৈধ অর্থ/স্বার্থ লেনদেনের কোন সুযোগই নাই। আবার প্রচুর অর্থ/স্বার্থ লেনদেনের  সুযোগ আছে, কিন্তু ধরা পড়ার ভয়ে বা সামলাতে পারার যোগ্যতা বা দক্ষতার অভাবে তারা নিজেদেরকে গুটিয়ে রাখে বা দুর্নীতি করেনা।

তবে যিনি যেধরনের সৎ হোননা কেন, দক্ষতার অভাবে সততা মূল্যহীন-ইহা প্রায় Universal truth. সৎ কিন্তু অদক্ষ লোক জানেইনা কিভাবে ভাল কাজটি করতে হবে।

Related posts