৩কোটি ষাট লাখ লোক মধ্যবিত্ত এবং পানি ভর্তি গ্লাস

*বাংলাদেশে প্রায় ৩কোটি ষাট লাখ লোক মধ্যবিত্ত।–বিআইডিএসের গবেষনা।

*দেশে ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য বেড়েছে প্রকট হারে-বিআইডিএসের গবেষনা।

*বাংলাদেশের ৩ কোটি মানুষ চরম দারিদ্র্যসীমার মধ্যে: বার্নিকাট।

অর্ধেক ভর্তি একটি পানির গ্লাস-*গ্লাসটিতে পানি আছে। *গ্লাসটি অর্ধেক ভর্তি। *গ্লাসটি অর্ধেক খালি। *গ্লাসটিতে অন্য কিছু নহে, পানি আছে। একটি বিষয়কে এরূপ positive, negative, neutral, বহুভাবে দেখা যায়।

বাংলাদেশে কতভাগ লোক উচ্চবিত্ত তা বিআইডিএসের(বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ-বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষনা প্রতিষ্ঠান) গবেষনায় আসেনি। প্রায় ১৬কোটি লোকের দেশে ঢাকা শহরের ১২টি এলাকার ৮০৯টি নমুনা বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেনা। তবুও যদি ধরে নিই যে, গবেষনা প্রায় সঠিক এবং যদি ধরে নিই যে, বাংলাদেশে সাড়ে ৩কোটি লোক উচ্চবিত্ত, তাহলে উচ্চবিত্ত এবং মধ্যবিত্ত(নিম্নমধ্যবিত্ত, উচ্চমধ্যবিত্ত) মিলে মোট বিত্তবান লোক ৭কোটি। যদিও বাংলাদেশে সাড়ে ৩কোটি লোক উচ্চবিত্ত নেই, আরও অনেক কম হবে। এতে বার্নিকাটের বক্তব্যও মিথ্যা প্রমানিত হয়। অর্থাৎ বাংলাদেশের ৩ কোটি নহে, ৯(নয়)কোটি  মানুষ দারিদ্র্যসীমা ও চরম দারিদ্র্যসীমার মধ্যে। এরা[৯(নয়)কোটি  মানুষ] ৩বেলা খেতে পায়না, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা, বিদ্যুৎ, গ্যাস, বিশুদ্ধ পানীয়জল, ইত্যাদি সঠিকভাবে পায়না। এসব কিছুর মূলে অস্বাভাবিক অতিরিক্ত জনসংখ্যা।

[বাংলাদেশের মধ্যবিত্ত শ্রেণি নিয়ে উপস্থাপিত গবেষণা প্রতিবেদনে ড. বিনায়ক সেন বলেন, ‘মধ্যবিত্ত শ্রেণি নির্ধারণে সর্বজনস্বীকৃত কোনো সংজ্ঞা নেই। সাধারণত কারও দৈনিক আয় দুই ডলার থেকে তিন ডলার হলে সে মধ্যবিত্ত শ্রেণির অন্তর্ভুক্ত। এ আয় তিন ডলার থেকে চার ডলারের মধ্যে হলে ওই ব্যক্তি উচ্চমধ্যবিত্তের অন্তর্ভুক্ত হবেন।’ ]

Related posts