১ কোটি ৩০ লাখ শিক্ষার্থীর উপবৃত্তি ও জনসংখ্যা

১।১ কোটি ৩০ লাখ শিক্ষার্থী উপবৃত্তি পাবে। এসব শিক্ষার্থীর পেছনে বছরে ব্যয় হবে ৩ হাজার ৬৭ কোটি ৩৯ লাখ টাকা।

২।ক্ষুদ্র পরিসরে শিল্পায়ন ও নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করে গ্রামীণ জনগণের জীবনযাত্রার মানোন্নয়নের জন্য ৬ হাজার ৯১৫ কোটি ৪১ লাখ টাকা ব্যয়ে ১৫ লাখ গ্রাহককে নতুন করে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হবে। ফলে দেশের ৮২ শতাংশ মানুষ বিদ্যুতের আওতায় আসবে।

৩।একনেকে মোট ১৬টি উন্নয়ন প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়। এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ১৬ হাজার ৮৮৭ কোটি ৮১ লাখ টাকা।

৪।এর মধ্যে ১৪ হাজার ৪১ কোটি ২৭ লাখ টাকা সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে মেটানো হবে। অর্থাৎ সরকারের টাকা আছে।

এরূপ আরও অনেক সংবাদ। সারা রাশিয়া ১৯৩২সালে বিদ্যুতায়ন করা হয়। আমাদের দেশে হবেনা কেন? সরকার জনসংখ্যা বৃদ্ধি করাতে চায়না, বরং কমাতে চায়। কিন্তু যখনই জনসংখ্যার সৃষ্টি হয় তখনই সরকারের দায়িত্ব হয়ে যায় এদের অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, স্বাস্থ্য-চিকিৎসা, শিক্ষা, বিদ্যুৎ, ইত্যাদির ব্যবস্থা করার।

যদি অস্বাভাবিক অতিরিক্ত জনসংখ্যা না হত তাহলে (উপবৃত্তি৩০৬৭+বিদ্যুৎ সংযোগ ৬৯১৬) প্রায় ১০হাজার কোটি টাকার ৯হাজার কোটি টাকায় ৯০০-১০০০মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন ও ১হাজার কোটি টাকায় বিদ্যুৎ সঞ্চালন ও বিতরন ব্যবস্থা নির্মান করা যেত। এতে বিদ্যমান গ্রাহকরা নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পেত, শিল্পোৎপাদন বৃদ্ধি পেত, উদ্বৃত্ত সবজী, ফল সংরক্ষন করা যেত।

(হাজার হাজার উন্নয়নমূলক কাজের মধ্যে এ কয়টি আগস্ট-২০১৭-এর পত্রিকার ১দিনের সংবাদ)।

Related posts