এসএ গ্রুপ(এসএ পরিবহন, এসএ টিভি, ইত্যাদি)

এসএ গ্রুপের কর্নধার জনাব সালাহউদ্দীন আহমদ। তিনি কতশতকোটি বা হাজার কোটি টাকার মালীক আমরা জানিনা। তবে বাহ্যিকভাবে নিশ্চিত যে তিনি একজন ধনী ব্যবসায়ী। তিনি একজন রাজনীতিকও। ঢাকা শহরের কাকরাইল মোড়ে তাহার বিরাট পরিবহন(পার্শ্বেল/কুরিয়ার) ব্যবসা আছে।এখানে, একটু উত্তরে, শান্তিনগর বাজার সংলগ্ন তার(এসএ গ্রুপের) অনেক ভূ-সম্পত্তি আছে, যা প্রায় খালি পড়ে আছে। এই ভূ-সম্পত্তি খালি পড়ে থাকা সত্বেও তিনি কাকরাইল মোড়ে প্রায় প্রতিদিন কয়েকডজন গাড়ীতে ২-৩সারি করে সরকারী রাস্তার অর্ধেক বা এক তৃতীয়াংশ দখল করে প্রায় সারাদিন মালামাল লোড-আনলোড করান। একাজটি তিনি তাঁর খালি পড়ে থাকা ভূমিতে করাতে পারেন।

অত্র এলাকার(কাকরাইল মোড়) চারিদিকের যানজটের অনেক কারনের মধ্যে এসএ পরিবহনের মালামাল লোড-আনলোড করা একটি বড় কারন। এখানে তিনি একটি মনোরম হাইরাইজ বিল্ডিং নির্মান করেন। এতে সেটব্যাক, MGC, FAR বিবেচনায় প্রায় ২-৩গুন বেশী অবৈধ কাজ করিয়েছেন।

স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন জাগে, প্রচুর অর্থবিত্ত থাকা সত্বেও, প্রচুর খালি যায়গা থাকা সত্বেও, অবৈধভাবে নানা কৌশলে, সুকৌশলে, কুটকৌশলে, অপকৌশলে, ২-৪-৬ বা ততোধিক আইন অমান্য করে আরও টাকা রোজগার করার প্রয়োজন কি?  আর টাকা রোজগার করতে না পারলে অসুবিধা কি?  এত অনিয়ম করে আরও টাকা রোজগার করার কারন কি? লোভাতুর কিছু সরকারী কর্মকর্তা ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে ঘুষের ক্ষেত্র তৈরী করে। অজস্র অর্থের মালীক এসব রাজনীতিক/ব্যবসায়ীরাও ঘুষ/দুর্নীতির ক্ষেত্র তৈরী করে।

Related posts