রাজউক, জেলা প্রশাসন, পূর্ত মন্ত্রনালয়, ভূমি মন্ত্রনালয়, পরিবেশ অধিদপ্তর ও অন্যদের দূর্নীতি।

সপ্তম শ্রেনীর বীজগনিত থেকে সমীকরন(Equation) অংকের শুরু। আজকের বিজ্ঞানের অগ্রগতির বিশাল অংশ জুড়ে আছে সমীকরন। এর(সমীকরন) মূল বিষয় হচ্ছে কিছু জানা রাশি(অংক বা সংখ্যা) থেকে অজানা রাশির মান বের করা। যেমন x+y=3, x-y=1. এখানে x,y –এর মান জানা নাই(অজ্ঞাত রাশি), 1,3 এর মান জানা আছে(জ্ঞাত রাশি)। 1,3 এর সাহায্যে x,y –এর মান জানা যায়(x=2, y=1)।

২৩০০বছর পূর্বের চানক্যের অর্থনীতি শাস্ত্রেই অদৃশ্য(বা অজ্ঞাত) দুর্নীতির কথা বলা আছে। অজ্ঞাত বা প্রকাশ্যে মানুষের অদেখা(unseen) দুর্নীতিও কিন্তু বীজগনিতের সমীকরনের(Equation) সাহায্যে প্রমান করা যায়। দাপ্তরিক ডকুমেন্টের সাহায্যে  unseen দুর্নীতি প্রমান করা যায়। যেখানে  দাপ্তরিক ডকুমেন্ট বা কোন সুত্রই থাকেনা সেখানে  জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ দ্বারা unseen দুর্নীতি প্রমান করা যায়। সিংহভাগ দুর্নীতি কোন সূত্রের সাহায্যেই বের করা যায়না বা প্রমান করা যায়না। আবার অনেক দুর্নীতি বের করা বা প্রমান করা গেলেও অবৈধ অর্থ, প্রশাসনিক ও রাজনৈতিক ক্ষমতার জোরে তা প্রতিষ্ঠিত করা যায়না।

কক্সবাজার সমুদ্রসৈকত-সংলগ্ন সৈকতপাড়ায় সরকারি পাহাড় কেটে তৈরি করা আবাসন প্রকল্পটি উচ্ছেদ করা হয়েছে। কারন এখানকার আবাসন প্রকল্পের মালীকরা হয়ত প্রভাবশালী নহে, হয়ত তাদের বেশী টাকা নেই তাই বেশী ঘুষ দিতে পারেনি। আমরা যদি  কক্সবাজারের সংশ্লিষ্ট সরকারী কর্মকর্তাদেরকে সৎ মনে করি তাহলে তারা আরও হাজার হাজার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করছেনা কেন? তারা যে কারনে তা করছেনা তা x,y-এর মত অজ্ঞাত রাশি। বীজগনিতের সমীকরনের (Equation) সাহায্যে আমরা অজ্ঞাত রাশির মান বের করতে পারি। আর তা হচ্ছে “ঘুষ”।

এমপি রব্বানীর বাড়ীর বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়, কক্সবাজার সমুদ্রসৈকত-সংলগ্ন সৈকতপাড়ায় সরকারি পাহাড় কেটে তৈরি করা আবাসন প্রকল্প উচ্ছেদ হয়, ঢাকায় বা দেশের আরো হাজার হাজার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ হয়। এগুলো seen বা জ্ঞাত রাশি। বসুন্ধরাসহ হাজার হাজার land developer, REHAB-সদস্য প্রকাশ্যে উচ্ছেদকৃত অবৈধ স্থাপনার চেয়ে শত-সহস্রগুন অবৈধ স্থাপনা নির্মান করছে। এগুলোও  seen বা জ্ঞাত রাশি। কিন্তু এগুলো উচ্ছেদ হয়না। কেন হয়না তা x,y-এর মত অজ্ঞাত রাশি। বীজগনিতের সমীকরনের (Equation) সাহায্যে আমরা অজ্ঞাত রাশির মান বের করতে পারি। আর তা হচ্ছে “ঘুষ”।

বীজগনিতের অত্যন্ত সহজ সমীকরনের (Equation) সূত্র জানা থাকলে অদেখা(unseen) দুর্নীতি নির্নয় করতে কোনপ্রকার ডকুমেন্ট বা জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদও লাগেনা।

Related posts