জনসংখ্যা–বাংলাদেশের প্রধান সমস্যা

বাংলাদেশের প্রধান সমস্যা কি তা একেকজন একেকরকম বক্তব্য দিবেন বা মন্তব্য করবেন। কেহ বলবেন জনসংখ্যা, কেহ দুর্নীতি, কেহ মাদক, কেহ রাজনৈতিক হানাহানি, ইত্যাদি। গ্রেডিং পদ্ধতিতে যেমন ৮০নম্বর পেলে A+, ১০০নম্বর পেলেও A+. সে হিসাবে এচারটি সমস্যাই A+. এর মধ্যে জনসংখ্যা আমাদের দৃষ্টিতে প্রধান সমস্যা। এজনসংখ্যা প্রচুর উপজাত দুর্নীতি ও সমস্যার সৃষ্টি করছে। মাদকের করালগ্রাসও অতিরিক্ত জনসংখ্যার একটি উপজাত সৃষ্টি। অস্বাভাবিক অতিরিক্ত জনসংখ্যা নাহলে এত সহজে যেমন মাদকের বিস্তার ঘটতনা, ঘটলেও জনসংখ্যা কম থাকলে তা সহজে নিয়ন্ত্রন করা যেত। ঈদে-পার্বনে, স্বাভাবিক জীবনে, যানবাহনে ভিড়, টিকেটের চাহিদা, বিদ্যুৎ, গ্যাস পানি, ইত্যাদির চাহিদা,…

Read More

চেষ্টা করা-পরিশ্রম করা

পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ বিজ্ঞানীরা, ধনীরা, সৎ রাস্ট্রনায়করা শতভাগ সফল হয়েছেন বোধহয় এটা কেহ স্বীকার করবেননা। মহাবিজ্ঞানী আইনস্টাইন(আমরা তাকে মহাবিজ্ঞানীই বলব) বলেছিলেন যে, তিনি জ্ঞানের সমুদ্রে একটি নুড়ি পাথর ছূঁড়েছেন মাত্র। পৃথিবীর মহাবিজ্ঞানী-মহামনিষীরা যদি শতভাগ সফল না হন তাহলে অপর কেহই শতভাগ সফল হতে পারবেনা, এটাই স্বাভাবিক। সর্বোচ্চ মেধাবী ছাত্র সকল বিষয়ে ১০০% নম্বর পেয়েছেন এমন রেকর্ড আমাদের জানা নেই।(২-১জন থাকলেও থাকতে পারেন)। কিন্তু ৩৩%পেয়েই ক’জন পাশ করে? আমাদের সমাজে রাস্ট্রে ৩৩% সফল এরূপ ক’জন পাওয়া যাবে? যারা ৩৩%পেয়ে পাশ করে তাদের অনেককে ৮০% পাওয়াদের থেকে অনেক বেশী পড়তে দেখেছি বা চেষ্টা…

Read More

অসংগতি রেখেই নূতন বেতন স্কেল বাস্তবায়ন

উপরোক্ত শিরোনামে সাবেক মন্ত্রী পরিষদ সচিব জনাব আলী ইমাম মজুমদার প্রথম আলোতে একটি সম্পাদকীয় লিখেছেন। তাঁহার লিখায় একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন বিষয় উঠে এসেছে। তিনি লিখেছেন-“…. চাকরির সূচনা স্তরে ক্যাডার পদের চেয়ে নন-ক্যাডারধারীদের একধাপ নিচে বেতন নির্ধারণের ব্যবস্থা হচ্ছে। নন-ক্যাডার পদে বিজ্ঞানী, প্রকৌশলী, প্রযুক্তিবিদসহ অনেক মেধাবী কর্মকর্তা আছেন। এ ধরনের সিদ্ধান্তের আবশ্যকতা ও এর প্রভাব ব্যাপকভাবে পর্যালোচনা করা হয়েছিল কি না, তা বোধগম্য নয়।” জনাব মজুমদার “প্রশাসন ক্যাডার”-এর একজন broadminded, দক্ষ, সৎ ও মেধাবী কর্মকর্তা। যিনি যত নীতিবানই হোন না কেন, তাঁহার মত সজ্জন ২-৪জন কর্মকর্তা ব্যতীত প্রশাসন ক্যাডার”-এর আর কোন…

Read More

রেলওয়ের ১০৬টি স্টেশন বন্ধ জনবল সংকটের কারনে

শতশত কোটি টাকার রেললাইন, অন্যান্য অবকাঠামো বিদ্যমান থাকা সত্বেও বছরে শুধুমাত্র ১২-১৩কোটি টাকা বেতনের জনবল সংকটের কারনে ১০৬টি স্টেশন বন্ধ। অথচ কয়েকগুন বেশী ব্যয়ে পদ্মা সেতুর উপর ৩৪,০০০কোটি টাকায় রেল লা্ইন করা হচ্ছে। ১০৬টি স্টেশন বন্ধের প্রধান কয়েকটি কারনের মধ্যে অন্যতম প্রধান কারনসমুহ হচ্ছে ব্যবস্থাপনার অভাব ও এখাতে দুর্নীতির সুযোগ কম। এখান থেকে প্রচুর অবৈধ অর্থ উপার্জন করা যাবেনা। সঠিক ব্যবস্থাপনা ও কম দুর্নীতির মাধ্যমে মাত্র কয়েকশত কোটি টাকা ব্যয় করে রেলওয়েকে দেশের ১৬কোটি লোকের সর্বোত্তম পরিবহন ব্যবস্থায় পরিনত করা এবং হাজার হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আয় সম্ভব। এ রাজস্ব…

Read More

রাস্ট্রের স্তম্ভ ও মানুষের মস্তিষ্ক।

ক্লাস সেভেনের ছাত্র আরিফের শারীরিক গঠন প্রায় টেন-ইলেভেন ছাত্রের মত এবং শক্ত-সুঠাম দেহ। বন্ধুদের কাছে পরে জানা যায় তার(আরিফ) মাথায় ক্রিকেট বলের আঘাত লাগে। ভয়ে মা-বাপের কাছে বলেনি। একসময় সে নিস্তেজ হয়ে যায়, স্বাভাবিক চলাফেরা কথাবার্তা বন্ধ হয়ে যায়। মেডিনোভা-এ্যাপোলো হসপিটালে নিয়েও বাঁচানো যায়নি। ওর মস্তিষ্কের একটি ক্ষুদ্র অংশ, প্রায় ৫% ড্যামেজ হয়ে গেছে। অলৌকিক বা কাকতালীয় বিষয় তার কিছুদিন পর আরিফের আপন ভাগ্নে ক্লাশ নাইনের ছাত্র হিরু মাথায় আঘাত পেয়ে মারা যায়। উভয়েরই শরীরে  আঘাত বা কোন ক্ষত ছিলনা। রক্তনালীতে চর্বি জমে তা ব্লক হয়ে যায়। এর ফলে হার্ট…

Read More

জেলা প্রশাসক বটে!

ঝিনাইদহের জেলা প্রশাসক জনাব জাকির হোসেন আকস্মিক পরিদর্শনে(surprise visit) গিয়ে বহু কর্মকর্তা-কর্মচারীকে অনুপস্থিত পান। এটা তিনি সংশ্লিষ্ট ডিপার্টমেন্টের জেলা পর্যায়ের/উর্ধতন কর্মকর্তাকে অবহিত করেন। অনুপস্থিত সবাইকে শোকজ করা হয়। এভাবে ইউএনও, জেলা/উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, এমপি সাহেবেরা আকস্মিক পরিদর্শন(surprise visit) করলে দেশের ও জনগনের অনেক উপকার/উন্নতি হত। শুধু অফিসের উপস্থিতি নহে, উন্নয়নমূলক কাজসহ কাবিখা, কাবিটা, ভিজিএফ, ইত্যাদি সঠিকভাবে হচ্ছে কিনা, তাহাও আকস্মিক পরিদর্শন(surprise visit) করতে পারেন। এতে রডের পরিবর্তে বাঁশ, পাথরের পরিবর্তে নিম্নমানের ইট, ইত্যাদি অনিয়ম চোখে পড়বে। দেশের প্রায় ৫৯%চিকিৎসক কর্মস্থলে যাননা, এটাও ধরা পড়বে।

Read More

সাংসদ কমলের নেতৃত্বে চালসহ ১০১ ট্রাক ত্রান বিতরন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে।

  ১০১ট্রাক ত্রানের মূল্য প্রায় ৫(পাঁচ)কোটি টাকা। একটি নির্বাচনী এলাকার জনগন মিলে এ ত্রান দিচ্ছে। এর ১% অর্থাৎ ৫(পাঁচ) লাখ টাকা ব্যয় করে এলাকার বিদ্যুৎ লাইন মেরামত ও সংরক্ষন করলে, অন্ততঃ ১বছর তেমন বিদ্যুৎ বিভ্রাট ঘটবেনা।(বড় ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ ব্যতীত)। দ্রস্টব্যঃ- বিনা খরচে এবং অথবা স্বল্প খরচে সুষ্ঠ বিদ্যুৎ সরবরাহ-পর্ব-১,২–http://corruptionwatchbd.com/31-2/

Read More

বাঙ্গালীর আত্মপরিচয়, বিবর্তিত মূল্যবোধ, এবং ……….

প্রথিতযশা কয়েকজন লেখক, যাদের কেহ কেহ সাবেক ও বর্তমান পদস্থ সরকারী কর্মকর্তা, কলেজ অধ্যক্ষ, ব্যারিস্টার তাদের লিখা দেশের বহুল প্রচারিত জাতীয় দৈনিকের সম্পাদকীয়/উপসম্পাদকীয়তে ৩১-১২-২০১৫ তারিখে ছাপা হয়। তার কয়েকটি এরূপ-বাঙ্গালীর আত্মপরিচয়:আতাউর রহমান, রম্যলেখক৷ ডাক বিভাগের সাবেক মহাপরিচালক৷ বিবর্তিত মূল্যবোধ-অমিত রায় চৌধুরী: অধ্যক্ষ, ফকিরহাট ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা ডিগ্রি মহাবিদ্যালয়, বাগেরহাট।বিভ্রান্তির কীট পচন ধরিয়েছে আমাদের তথ্য সম্পদেঃ ড. সা’দত হুসাইন,  সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব।জনসংখ্যা বাড়ছে, কমছে মানুষ : ডক্টর তুহিন মালিক, সুপ্রিমকোর্টের আইনজ্ঞ ও সংবিধান বিশেষজ্ঞ। ঘুষ দেব না, খাব না এবং ভোগান্তি:মোস্তাফিজুর রহমান, ব্রিসবেন (অস্ট্রেলিয়া) থেকে । বাঙ্গালীর আত্মপরিচয়ের, অবনমিত মূল্যবোধ জানতে…

Read More

নুরুল ইসলামের পাওনা টাকা,  আমাদের কতিপয় রাজনীতিবিদ এবং সরকারী কর্মকর্তা।

নুরুল ইসলাম  এক লোকের কাছে বেশ কিছু টাকা পেতেন(সত্য ঘটনা)। কিন্তু আদায় করতে পারছিলেন না। সরল বিশ্বাসে দেওয়া টাকার কোন স্বাক্ষ্য প্রমানও নেই যে মামলা করে আদায় করবেন। তো কারো পরামর্শে তিনি টাকা আদায়ের জন্য এক প্রভাবশালী লোকের(আমাদের দৃষ্টিতে মাস্তান) স্মরনাপন্ন হলেন। সেই প্রভাবশালী লোক দেনাদারের কাছ থেকে কিছু টাকা নিয়ে বাকী টাকা মাফ করে দিয়ে এসেছে। হতে পারত সে(প্রভাবশালী লোক) সুদ-মুনাফার কিছু টাকা খেয়ে, সুদ-মুনাফার আর কিছু টাকা অথবা সুদ-মুনাফার সব টাকা মাফ করে পাওনাদারের পূরো আসল টাকা আদায় করে দিতে পারত। সে(প্রভাবশালী লোক) এটাও করতে পারত যে, পাওনাদারকে…

Read More

দায়িত্ব-কর্তব্যে অবহেলা, অযোগ্যতা, অদক্ষতা, ইত্যাদি অসততার চেয়ে অনেক ভয়াবহ ও বিপজ্জনক

কোন দায়িত্বশীল ব্যক্তির বিশেষ করে সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কোন কর্মকর্তা কর্মচারীর দায়িত্ব-কর্তব্যে অবহেলা, অযোগ্যতা, অদক্ষতা কত ভয়াবহ ও বিপজ্জনক হতে পারে তার বাস্তব উদাহরন দিতে গেলে কয়েকটি বই লিখা যাবে। সাবেক মাননীয় প্রধান বিচারপতি ও চেয়ারম্যান আইন কমিশন জনাব এবিএম খায়রুল হক সত্যিই বলেছিলেন যে, কর্মকর্তার/বিচারকের দুর্বলতায় দুর্নীতিবাজ কর্মচারীরা মাথায় উঠে। তাঁহার একথা শতভাগ সত্যি। শুধু অধস্তনরা নহে, দুর্নীতিবাজ উর্ধতনরাও অধস্তনদের এ দুর্বলতার সুযোগ নেয়। তবে বিচারকের মত একজন দায়িত্বশীল ব্যক্তি/কর্মকর্তার দায়িত্ব-কর্তব্যে অবহেলা, অযোগ্যতা, অদক্ষতায় অপর শত শত হাজার হাজার লোকের জীবন বিপন্ন হতে পারে। নেপোলিয়ন যথার্থই বলেছেন, অসৎ লোকের…

Read More
1 2 3 4